আজ: বুধবার | ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৩ই সফর, ১৪৪২ হিজরি | সকাল ৯:১৩
শিক্ষা

দেশে একটি ঘরও অন্দকার থাকবেনা:প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ বার্তা | ২৮ আগস্ট, ২০২০ | ৩:০১ পূর্বাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জে ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ  ও নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতের লক্ষ্যে শ্যামপুরে ২৩০/১৩২ কেভি গ্রেড উপকেন্দ্রের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই উপকেন্দ্রের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়াও  ১৮ জেলার ৩১টি উপজেলার শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেন তিনি। পাশাপাশি দুটি পাওয়ার প¬্যান্ট, ১১টি গ্রিড সাব-স্টেশন, ছয়টি নতুন সঞ্চালন লাইনও উদ্বোধন করেন। এছাড়া ছয়টি সঞ্চালন লাইন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আগামী ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো জ্বলবে। ’২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। দিন যতই যাচ্ছে বিদ্যুতের ব্যবহার আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি বলেন, দেশের একটি ঘরও অন্ধকার থাকবে না। প্রতিটি ঘর পর্যায়ক্রমে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে। এটা আমাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। তিনি বলেন, ২০০৯ সালে বিদ্যুতের ব্যবহারকারী ছিল ৪৭ ভাগ, আজ ৯৭ দশমিক ৫০ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে। সরকারপ্রধান বলেন, যেখানে বিদ্যুৎ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না সেখানে আমরা সোলারের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বিশেষ করে চরাঞ্চলে সোলার ব্যবহার যাতে নিশ্চিত হয় সে ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ৫৮ লাখ সোলার দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, গ্রামের মানুষ যেন সকল সুযোগ-সুবিধা পায়, সে বিষয়ে আমাদের ভাবতে হবে। শুধু শহরের মানুষকে সুযোগ-সুবিধা দিলে হবে না, গ্রামে এখন অনেক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। আমরা বহুমুখী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। উদ্বোধনের সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মোলন কক্ষ থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, নারায়ণগঞ্জ স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক শাকিল আহাম্মেদ, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শামীম বেপারি, জেলা সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক, জেলা তথ্য অফিসার সিরাজ-উদ-দৌলা, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাসান বিন মোহাম্মদ আলী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস প্রমুখ। জানা যায়, শ্যামপুর ২৩০/১৩২ কেভি গ্রেড উপকেন্দ্রের সক্ষমতা ৬০০ এমভিএ। এবং উপকেন্দ্রের নির্মাণ ব্যয় ১৩২ দশমিক ১ কোটি টাকা। শ্যামপুরে ২৩০/১৩২ কেভি গ্রেড উপকেন্দ্র নির্মাণের উদ্দেশ্য নারায়ণগঞ্জ ও তৎসংলগ্ন এলাকার ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ ও গুণগত মানসম্পন্ন এবং নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ সরবারহ নিশ্চিত করা। পাশাপাশি উপকেন্দ্র নির্মাণের ফলে সংশ্লিষ্ট এলাকায় লোডশেডিং ও লো-ভোল্টেজ সমস্যার সমাধান হয়েছে। পাশাপাশি গুণগত মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা তৈরী হওয়ায় আর্থিক কর্মকান্ডের সুযোগ বৃদ্ধি পেয়েছে।





এই বিভাগের আরো সংবাদ




Leave a Reply

%d bloggers like this: