আজ: শুক্রবার | ১৪ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জিলহজ, ১৪৪১ হিজরি | বিকাল ৫:২০
বন্দর

মেয়ের চেয়ে ছেলে ভক্ত বেশি

বাংলাদেশ বার্তা | ০৬ জুলাই, ২০২০ | ৩:২৬ অপরাহ্ণ

জনপ্রিয় র‌্যাপ সংগীতশিল্পী ও অভিনেতা তানজীম হাসান অনিক। ছোট পর্দার এই তারকা কথার জুড়ি মেলেছেন মানবকণ্ঠের সঙ্গে।
আজকের ‘৭ প্রশ্নে তারকাজীবন’ বিভাগে সাক্ষাৎকার নিয়েছেন- অর্ক রায় সেতু

চলচ্চিত্র অঙ্গনে প্রবেশ কিভাবে?
শুরুতে আমি একজন র‌্যাপ সংগীতশিল্পী ছিলাম। তাই বলে মিডিয়ার প্রতি আমার আগ্রহ কম ছিল তা কিন্তু নয়। একটা লক্ষণীয় বিষয় হলো- আমার র‌্যাপ সংগীতগুলো মানুষের কাছে খুব একটা জনপ্রিয়তা পায়নি। আসলেই মানুষের কাছে গানগুলো পৌঁছানোর প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে পারিনি। তাছাড়া ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন ছিল ভিজুয়ালে কাজ করব। কিন্তু সেটা অনেক কঠিন কাজ। মিডিয়ায় আসার জন্য পথ পরিচিতির দরকার লাগে মানুষের। একদিন হঠাৎ পরিচিত ডাইরেক্টর রুবেল ভাইয়ার কাছে নাটকে কাজ করার কথা জানালাম। তখন তিনি নাট্য নির্মাণের পাশাপাশি নির্মাতা শিহাব শাহীনের সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করতেন। তারপর হঠাৎ নাটকের শুটিংয়ের জন্য টেলিফোন আসে। এভাবে ২০১৬ সালে প্রথম নাট্যাঙ্গনে যাত্রা শুরু। বলা চলে একটা লাকি সময় (হাসি)।

প্রথম নাটকের অভিজ্ঞতা?
অভিনীত প্রথম নাটকের নাম ছিল ‘প্রেম ভালোবাসা ইত্যাদি’। নাটকটি নির্মাণ করেছিলেন নির্মাতা শিহাব শাহীন। আরো অভিনয় করেছিলেন তৌসিফ মাহবুব, নাদিয়া আফরিন মিম, আমিসহ অনেকেই। অ্যাকচুয়ালি তখনও আমি র?্যাপ মিউজিক ব্যাকগ্রাউন্ডের আর্টিস্ট ছিলাম। সুতরাং এক কথায় বলা যায় নাটক সম্বন্ধে তেমন কোনো ধারণাই ছিল না। তবে শুটিংয়ের প্রথমদিন অন্যসব আর্টিস্টের শুটিং শেষে তারা জানায়, আজকের মতো শুটিং প্যাকআপ। মানে পালা তখনও অনিশ্চিত। এভাবে শুটিং সেটের প্রথমদিন শেষ হয়ে গেল। সেদিন আর নাটকের সিকুয়েন্স আসেনি। তারপর টানা তিনদিন শুটিং করেছিলাম। পরবর্তীতে নাটকটি ঈদে রিলিজ করা হয়। সেই নাটকে করা র‍্যাপ সংগীত সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক ভাইরাল হয়ে যায়। তারপর ছোট ছোট সিক্যুয়েন্স, ব্যাকগ্রাউন্ড আর্টিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করি। অনেক ধারাবাহিক নাটকে কাজের পাশাপাশি আফরান নিশো ভাইয়ের সাথে ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা, এক্স বয়ফ্রেন্ডসহ অসংখ্য নাটকে কাজ করেছি। তবে আমার প্রথম নাটকের পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। সব কিছুর পর বলব মিডিয়া ক্যারিয়ারে আফরান নিশো ভাইয়ের অবদান ছিল অনেক বেশি। উনার কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

দর্শকরা আপনার অভিনয়ের কোন দিকটা পছন্দ করে?
এটা আসলে সঠিক বলতে পারব না। কারণ সেটা একমাত্র দর্শকরাই জানে। আমার কোন চরিত্রটা তাদের কাছে পছন্দ। কোন অভিনয়টাই তাদের কাছে ভালো লাগে। এটা শুধুমাত্র তারাই বলতে পারবে। দর্শকের ওপর ছেড়ে দিলাম। তা না জানাই থাক।

অভিনয়ের পাশাপাশি কী করেন?
পড়াশোনা, র‌্যাপ মিউজিক, খাই-দাই, ঘুরি-ফিরি।

আপনার সম্পর্কে এমন কিছু বলুন যা দর্শক জানে না।
মাঝেমাঝে দর্শকরা ভয়ে আমার সাথে ছবি তুলতে আসে না। কারণ তারা ভাবে আমি অনেক রাগী। তারা যদি ছবি তুলতে আসে তাদেরকে যদি বকা দেই। আসলেই দর্শকরা জানে না আমি অনেক সরল সোজা এবং শান্ত প্রকৃতির মানুষ।

এই লকডাউনে আপনার কতগুলো কাজ আটকে আছে?
বাংলাদেশে লকডাউন হওয়ার আগে ১৪টি নাটকের সময় নিয়েছিলাম। সেই কাজগুলো এখনো আটকে আছে।

আপনার মেয়ে ভক্ত বেশি নাকি ছেলে?
অবশ্যই মেয়ের চেয়ে ছেলে ভক্ত বেশি।





এই বিভাগের আরো সংবাদ




Leave a Reply

%d bloggers like this: