আজ: শনিবার | ৮ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৮ই জিলহজ, ১৪৪১ হিজরি | রাত ১২:০২
সাহিত্য

সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা

বাংলাদেশ বার্তা | ০৫ জুলাই, ২০২০ | ১:৫২ পূর্বাহ্ণ

একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে সে রাষ্ট্রের সংবাদপত্র। সংবাদপত্র শুধু ছাপা অক্ষরে কয়েকটি পৃষ্ঠার কাগজ নয়, বরং গণমানুষের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, অধিকার-বঞ্চনা, পাওয়া-না পাওয়ার প্রতিফলন ও প্রতিচ্ছবি। সংবাদপত্রসহ মিডিয়া আছে বলেই স্বৈরতন্ত্রের বা আধিপত্যবাদের Kg©কাণ্ড মানুষ জানতে পারে। স্বৈরশাসক বা অপরাধীরা মিডিয়াকেই ভয় পায়, মিডিয়াই তাদের কাছে সবচেয়ে বড় আতঙ্ক। ক্ষমতাহীন সাধারণ মানুষ কিছুটা হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে পারে মিডিয়ার জন্য। স্বৈরতন্ত্র যখন আঘাত হানে, তখন মিডিয়াকেই তাদের লক্ষ্য wba©viY করে। 19৭৫ সালে বাকশাল গঠনের সময়ও মাত্র চারটি পত্রিকা রেখে বাকি সব বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। মিডিয়া জগতও জাতির সাwe©ক সমস্যা জনগণের কাছে প্রকাশ করে এবং জনগণের প্রকৃত অবস্থান তুলে ধরার জন্য মিডিয়াই একমাত্র অবলম্বন। বাংলাদেশে যেসব বিষয় মিডিয়াতে প্রকাশ পেয়েছে, প্রধানত সেগুলোরই বিচার বা সমাধান হয়েছে। অন্যগুলো বরফের নিচে চাপা পড়তে পড়তে একদিন বরফ গলে নদী থেকে সমুদ্রে চলে যায়। কিন্তু সরকার তখন আর এর খোঁজ রাখে না। স্মরণ রাখে শুধু ভুক্তভোগীরা। সঙ্গত কারণেই, সংবাদপত্রকে একটি রাষ্ট্রের চতু_© স্ত¤¢ বলা হয়।  অন্যান্য আইনের পাশাপাশি, সংবাদপত্রগুলোর প্রকাশনা Ôছাপাখানা ও প্রকাশনা (ঘোষণা ও নিবন্ধীকরণ) আইন-১৯৭৩Õ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। একই আইনের (চ) ধারা মোতাবেক Ôসংবাদপত্রÕ অ_© গণসংবাদ বা গণসংবাদের ওপর মন্তব্যসহ কোনো সাময়িকী এবং সরকার KZ…©K গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা সংবাদপত্র হিসেবে ঘোষিত, এরূপ যেকোনো শ্রেণীর সাময়িকী এর AšÍfz©³ হবে।Õ সংবাদপত্র একটি শিল্প বটে। ফলে মালিক গোষ্ঠী KZ…©K বাণিজ্যিক বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হয়, কিন্তু পরিবেশিত সংবাদ বাণিজ্যিক ভিত্তিতে বিবেচনা করা নৈতিকতার পরিপন্থী। ÔনৈতিকতাÕ এমন একটি বিষয় যা আইন দিয়ে পরিমাপ বা নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। তবে পত্রিকার নৈতিকতার মাপকাঠি নিf©i করে সংবাদ পরিবেশনের সততা এবং পাঠকের মূল্যায়নের ওপর। একতরফা সংবাদ বা বক্তব্য পরিবেশনা পত্রিকার সততা ও নৈতিকতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ না ছাপানো কিংবা কোনো লেখকের লেখায় বিক্ষুব্ধ হলে বিক্ষুব্ধ ব্যক্তির মন্তব্য বা (যদি সম্পাদকের সমালোচনাও হয়) লেখা না ছাপানো নৈতিকতার পরিপন্থী। সম্পাদক নিজে কোনো রাজনৈতিক দলের mg_©K বা সদস্য হতে পারেন, কিন্তু পত্রিকা Ôযা দেখবে তা লিখবেÕ এটাই হবে করণীয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, কোনো কোনো পত্রিকা কাh©Z: নৈতিকতার পরিপন্থী ভূমিকা রাখছে। Ôনিরপেক্ষতাÕi মুখোশ পরে সরকারি মুখপত্র হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে সুকৌশলে। ‡cÖÿvc‡U দেখা যাচ্ছে, যার ১০টি ব্যবসা আছে, তিনি মিডিয়া জগতে প্রবেশ করেন প্রতিপত্তি বা প্রভাবকে টেকসই করার জন্য। তবে যারা পেশাগতভাবে সাংবাদিকতা করেন, তাদের বিষয় আলাদা। Ôসংবাদপত্রÕ একটি Ôপ্রতিষ্ঠানÕ হিসেবে পক্ষপাতিত্বে জড়িয়ে পড়বে এটা নিশ্চয়ই জনগণ mg_©b করে না। সংবাদপত্র যদি পক্ষপাতিত্ব বা রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ে বা কারো মুখপত্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়, তবে সেটি নিরপেক্ষতা হারায়।

লেখক তৈমূর আলম খন্দকার





এই বিভাগের আরো সংবাদ




Leave a Reply

%d bloggers like this: